Friday, January 27, 2023
Homeখবর এখনএকটি দেশকে সবাই তো নানান ভাবে দেখেন কিন্তু ইংল‍্যান্ড, গ্রেট ব্রিটেন আর...

একটি দেশকে সবাই তো নানান ভাবে দেখেন কিন্তু ইংল‍্যান্ড, গ্রেট ব্রিটেন আর ইউ কে-র মধ‍্যে তফাৎ সেটা কি…

 প্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধাঃ-

তিনটি শব্দ-ইউনাইটেড কিংডম সংক্ষেপে ইউকে,গ্রেট ব্রিটেন আর ইংল্যান্ড। আমরা অনেক সময়েই হয়তো একটু অসচেতন ভাবেই এই তিনটি টার্মকে সাধারণত একই অর্থেই ব্যবহার করে ফেলি। বিষয়টি যেন আরও বেশি দেখা যাচ্ছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন পর্ব জুড়ে,সেই বরিস জনসনের পদত্যাগ পর্ব থেকেই বারবার এই তিনটি শব্দ লেখা হচ্ছে, লোকজন আলোচোনাও করছে, ফলত কান পাতলেই শব্দগুলি শোনা যাচ্ছে। আপাত ভাবে একই অর্থবোধক ভাবে ব্যবহৃত, লিখিত বা উচ্চারিত হলেও এই তিনটির মধ্যে সামাজিক ভৌগোলিক ও রাজনৈতিক পার্থক্য রয়েছে। ‘দ্য ইউনাইটেড কিংডম’ হল ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস এবং নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড নিয়ে গঠিত সার্বভৌম একটি দেশ। ‘দ্য গ্রেট ব্রিটেন’ হল ইউরোপের উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত বৃহত্‍ এক দ্বীপ, যার মধ্যে ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড এবং ওয়েলস নামক তিনটি দেশ রয়েছে। আর ‘ইংল্যান্ড’ হল ইউনাইটেড কিংডমের মধ্যে আয়তন এবং জনসংখ্যায় সবচেয়ে বড় দেশ। আসুন, ব্যাপারটি আর একটু ভালো করে বুঝে নিতে বিষয়টি নিয়ে আমরা আর একটু গভীর চর্চায় মগ্ন হই। 

ইউনাইটেড কিংডম:

‘দ্য ইউনাইটেড কিংডম অফ গ্রেট ব্রিটেন অ্যান্ড নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড’ এর সংক্ষিপ্ত রূপ ‘ইউকে’। যাকে আমরা ‘যুক্তরাজ্য’ বলে বোঝাই। নামটির পেছনে রয়েছে বেশ কয়েকটি রাজ্য বা দেশ– ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস,নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড। কবে গঠিত হয়েছিল এই ইউকে? এ নিয়ে মতানৈক্য থাকলেও অনেকের মতে ‘অ্যাক্ট অফ ইউনিয়ন’-এর মাধ্যমে ১৭০৭ সালে এটি গঠিত হলেও ১৮০১ সালের দিকে এর সঙ্গে যখন আয়ারল্যান্ড সংযুক্ত হল তখন এটিকে ইউনাইটেড কিংডম নামে নামকরণ করা হয়। 

দ্য গ্রেট ব্রিটেন/ব্রিটেন:

গ্রেট ব্রিটেন কোনও দেশ নয় বরং বিশাল আয়তনের এক দ্বীপ। ব্রিটিশ দ্বীপপুঞ্জের সবচেয়ে বড় অখণ্ড দ্বীপ এটি। উত্তর আয়ারল্যান্ড বাদে অখণ্ড এই দ্বীপটি ভাগাভাগি করে নিয়েছে যুক্তরাজ্যের বাকি তিন দেশ– ইংল্যান্ড, ওয়েলস এবং স্কটল্যান্ড। মনে করা হয়, সবচেয়ে বড় দ্বীপ বলেই এর নামের আগে ‘গ্রেট’ শব্দটি বসানো হয়েছে। ব্রিটেন নামটি রোমান শব্দ ‘ব্রিটানিয়া’ থেকে এলেও এর সঙ্গে গ্রেট শব্দটি কেন জুড়ে দেওয়া হয়েছিল সে নিয়ে বিভিন্ন মতামত দেখা যায়। প্রাথমিক ভাবে যেটি মনে করা হয়,তা হল পাশের ‘ব্রিটানি’ নামক একটি ফ্রেঞ্চ প্রতিবেশী রাজ্য থেকে এই ভূখণ্ডকে আলাদা করার জন্যই হয়তো এর সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছিল ‘গ্রেট’ শব্দটি। দ্বিতীয় আর একটি মত পাওয়া গিয়েছিল সেটি হল, কিং জেমস চাইছিলেন না তাঁকে শুধুমাত্র ব্রিটেনের রাজা হিসেবে বলা হোক। কেননা ব্রিটেন বলতে তখন বোঝানো হত রোমান ব্রিটেনকে, যেটা গঠিত হয়েছিল শুধুমাত্র ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসকে নিয়ে। তিনি ছিলেন গোটা দ্বীপটির রাজা অর্থাত্‍, যার মধ্যে স্কটল্যান্ডও ছিল। এর রাজা হিসেবে নিজের প্রোফাইলটা বেশ বড় করে দেখানোর জন্যই তিনি ব্রিটেনের সঙ্গে ‘গ্রেট’ শব্দটি জুড়ে দিয়েছিলেন বলে মনে করা হয়।

ইংল্যান্ড: 

আমরা অনেকেই ‘ইউনাইটেড কিংডম’ বলতে ‘ইংল্যান্ড’কেই বুঝে থাকি, বা বোঝাই। কিন্তু তা নয়, ওয়েলস কিংবা স্কটল্যান্ডের মতোই ইংল্যান্ড একটি দেশ। এর অবশ্য একটি বৈশিষ্ট্য আছে। এটি ইউনাইটেড কিংডমের মধ্যে আয়তন এবং জনসংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে বড় দেশ। তা ছাড়া ইউনাইটেড কিংডম গঠনের ক্ষেত্রে ইংল্যান্ড দেশটিরই সবচেয়ে বড় ভূমিকা ছিল। সেই কারণেই হয়তো ইংল্যান্ডের রাজধানী লন্ডনকে ইউনাইটেড কিংডমেরও রাজধানী হিসেবে গণ্য করা হয়।

তা হলে, এবার আপনি পরিষ্কার করে নিন, ঋষি সুনক ঠিক কোন ভূখণ্ডের শাসনভার নিতে চলেছেন। তিনি লিজ ট্রাস-পরবর্তী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইতিমধ্যেই নির্বাচিত। ২৮ অক্টোবর তিনি শপথ নিতে চলেছেন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar