Saturday, February 4, 2023
Homeখবর এখনবীরভূমের বেতাজ বাদশা অনুব্রত মন্ডল যখন সিবিআই হেফাজতে তখন দেখা মিলল না...

বীরভূমের বেতাজ বাদশা অনুব্রত মন্ডল যখন সিবিআই হেফাজতে তখন দেখা মিলল না কোনো অনুগামীর…

 বীরভূমের বেতাজ বাদশা তিনি। তাঁর বাড়ি ভিড় করে থাকতেন অনুগামীরা কিন্তু বৃহস্পতিবার অনুব্রত মণ্ডলকে যখন গ্রেফতার করতে যায় সিবিআই তখন তার ছবিটা ছিল একেবারে অন্যরকম। ফাঁকা ছিল নীচুপট্টির পাড়ি। থমথমে গোটা চত্ত্বর। গতকাল থেকেই পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করেিছল। অনুব্রত কলকাতা থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে ফেরার পরেই যেন বদলে গিয়েছিল বোলপুরের চেহারা। যাঁরা এতদিন অনুব্রতর অনুগামী বলে দাবি করতেন তাঁদের কোনও হদিশ মিলছে না।এক কথায় বিনা বাঁধায় গ্রেফতার করা হয়েছে অনুব্রত মণ্ডলকে। সকাল সাড়ে নটা থেকে রুদ্ধশ্বাস অভিযান চলেছে অনুব্রত মণ্ডলের নীচু পট্টির বাড়িতে। সেখােন ঠাকুর ঘরে দরজায় খিল দিয়ে বসেছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। সিবিআই অফিসাররা এক প্রকার জোর করেই তাঁকে ঘর থেকে বের করে গ্রেফতার করে। দফায় দফায় জেরা করে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। অনুব্রত মণ্ডলের অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর নিয়েই হাজির হয়েছিল সিবিআই অফিসাররা। ১০০ কেন্দ্রীয় বাহিনী সঙ্গে নিয়ে গিয়ে গোটা বাড়ি ঘিরে ফেলা হয়েছে। এরিয়া ডোমিনেট করতে শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। কিন্তু যে পরিমান প্রস্তুতি নিয়ে সিবিআই অফিসাররা অনুব্রত মণ্ডলকে গ্রেফতার করতে গিয়েছিল। তার কিছুই হয়নি। উল্টে একেবারে বিনা বাঁধাতেই গ্রেফতার করা হয় অনুব্রত মণ্ডলকে।

এতদিন কেষ্ট অনুগামী বলে সারাদিন তাঁর বাড়ির সামনে হাজির থাকছেন যাঁরা। নিজেদের দাদার অনুগামী বলে পাড়ায়, আড্ডায় দাপট দেখাতেন তাঁদের কারোর দেখা এদিন মেলেনি কেষ্টর বাড়ির সামনে। গতকাল থেকেই ফাঁকা হতে শুরু করেছিল অনুব্রতর বাড়ি। থমথমে হয়ে ছিল গোটা এলাকা। সিবিআই কার্যত ফাঁকা মাঠেই গোল দিয়েছে। এতদিন অনুগামীদের ভিড়ে গমগম করত কেষ্ট নীচুপট্টির এই বাড়ি। নির্বাচন হোক না হোক ভিড় লেগেই থাকত অনুব্রত মণ্ডলের বাড়ির সামনে। কিন্তু বৃহস্পতিবারের পরিস্থিতিটা ছিল একেবারেই অন্যরকম।মনে করা হচ্ছে সিবিআই গ্রেফতার করবে আঁচ করে পার্টি অনুব্রত থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে শুরু করে। কারণ এসএসকেএম হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাঁকে ফিট সার্টিফিকের দেয়ার মধ্যেই সেই ইঙ্গিত ছিল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মত অনুব্রত মণ্ডলকে ঝেড়ে ফেলে দিতে চাইছে টিএমসি। যদি এই নিয়ে টিএমসির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে কোনো কথা বলা হয়নি। তবে প্রথম সারির নেতারা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন।

বীরভূমে যেখানে বাঘে গরুতে এক ঘাটে জল খেতেন অনুব্রত নামে। সেই বীরভূমে নিজের বাড়ি থেকে গ্রেফতার কেষ্ট। তাও আবার কোনও রকম বাধা ছাড়া। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ফিরহাদ হাকিমকে যখন গ্রেফতার করা হয়েছিল তখন অনুগামীদের প্রবল বিরোধিতার মাঝে পড়তে হয়েছিল সিবিআইকে। কিন্তু কেষ্টর ক্ষেত্রে সেটা হয়নি। এত জনপ্রিয় নেতার গ্রেফতারিতে কেউ বাধা পর্যন্ত দেয়নি। উল্টে এই নিয়ে কেউ মুখ খুলতে রাজি নন বোলপুরে। সেই সঙ্গে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা গোটা বীরভূমে নকুলদানা জলবাতাসা বিলি করতে শুরু করেছে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar