Saturday, February 4, 2023
Homeখবর এখনসরকার কোন ভাল কাজ করলেও সেখানে রাজনীতির রং লাগানো হচ্ছে বলে আফশোস...

সরকার কোন ভাল কাজ করলেও সেখানে রাজনীতির রং লাগানো হচ্ছে বলে আফশোস প্রধানমন্ত্রী মোদীর

 প্রতিনিধি,মুক্তিযোদ্ধাঃ রাজনীতির রং-এ ঢাকা পড়ছে নাগরিকদের কল্যাণে নেওয়া সরকারের ভাল পদক্ষেপ। নয়াদিল্লির এক সরকারি অনুষ্ঠানে এমনটাই আক্ষেপ প্রধানমন্ত্রী মোদীর। তিনি বলেন, রাজনীতির রং ভাল কাজকেও

নষ্ট করে দেয়। প্রধানমন্ত্রী এদিন গিয়েছিলেন, প্রগতি ময়দান ইন্টিগ্রেটেড ট্রান়জিট করিডর প্রকল্পের মূল টানেল ও ৫ টি আন্ডারপাশের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে। অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়েই প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্য কিনা তা অবশ্য জানা যায়নি।প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, গত বছর তিনি প্রতিরক্ষা কমপ্লেক্সের উদ্বোধনের সুযোগ পেয়েছিলেন। তিনি বলেন, দেশের দুর্ভাগ্য যে অনেক ভাল কা়জ, ভাল উদ্দেশ্য নিয়ে করা কাজ রাজনীতির রং-এ ঢাকা পড়ে যায়।গত মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সেনাবাহিনীতে নিয়োগে অগ্নিপথ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করা হয়। পরের দিন থেকেই আন্দোলন শুরু হয়ে যায়। আস্তে আস্তে তা দেশের বিভিন্ন দিকে ছড়িয়ে পড়ে। সেনাবাহিনীতে স্বল্প মেয়াদি নিয়োগ-নীতির বিরোধিতা করে দেশব্যাপী আন্দোলন হিংসার

রূপ নেয়। বিভিন্ন জায়গায় ট্রেন ও বাসে আগুন লাগানো হয়। এছাড়াও সরকারি সম্পত্তিরও ক্ষতি করা হয়। শুধুমাত্র ভারতীয় রেলেই এই ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৭০০ কোটি টাকার মতো বলে দাবি করা হয়েছে। অগ্নিপথ প্রকল্পের মাধ্যমে সেনাবাহিনীতে নিয়োগের বিরোধিতায় সরব হয়েছেন দেশের বিরোধী রাজনৈতিক

দলগুলি।২০১৯-এ দ্বিতীয়বারের জন্য নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পরে প্রথমে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা ও ৩৫এ ধারা বাতিল করা হয়। পরবর্তী সময়ে সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাশ করানো হয়। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে সারা দেশে হিংসার আন্দোলন ছড়ায়। সেই সময়েও সরকারি

সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষতি হয়। যদিও ২০২০-র শুরুর দিকে দেশে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়া সিএএ যেমন লাগু হয়নি, ঠিক তেমনই তার প্রয়োগ কবে হবে, তা নিয়ে কিছু বলেনি মোদী সরকার। বলে রাখা ভাল সিএএ বিরোধিতায় সব হয়েছিল দেশে প্রায় সব বিরোধী রাজনৈতিক দল।২০২০-র দ্বিতীয়ার্ধে তিন কৃষি আইন পাশ করানো হয় সংসদে। সরকারের দাবি ছিল কৃষকরা এই তিন আইনে ব্যাপকভাবে উপকৃত হবে। কিন্তু শুরু থেকেই তা নিয়ে বিরোধিতা করেন কৃষকরা। বিশেষ করে পঞ্জাব, হরিয়ানা, পশ্চিম উত্তর প্রদেশের কৃষকরা দিল্লির অদূরে মাসের পর মাস ধর্নায় বসেন। তাঁদেরকে সমর্থন করেন দেশে প্রায় সব বিরোধী রাজনৈতিক দল। ২০২১-এর শেষে এসে সরকার তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারে বাধ্য হয়।আফশোসের পরেও প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এটা নতুন ভারত। সমস্যার সমাধন করে। তনু প্রতিশ্রুতি দেয় এবং তা পূরণ করে। প্রধানমন্ত্রী এদিন যে প্রকল্পের উদ্বোধনে গিয়েছিলেন, সেই প্রগতি ময়দান ইন্টিগ্রেটেড ট্রানজিট প্রকল্প, যা প্রগতি ময়দান পুনঃ উন্নয়ন প্রকল্পের একটি অংশ, তা আগে ছবার সম্পূর্ণ হওয়ায় সময়সীমা মিস করেছে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar