Sunday, January 29, 2023
Homeরাজনীতিমোদি থেকে মমতার ক্যাবিনেটে ফের মন্ত্রী হয়ে বাবুল সুপ্রিয়র মোক্ষম জবাব বিজেপিকে....

মোদি থেকে মমতার ক্যাবিনেটে ফের মন্ত্রী হয়ে বাবুল সুপ্রিয়র মোক্ষম জবাব বিজেপিকে….

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী। এবার সেই তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভায় ঢুকলেন পূর্ণমন্ত্রী হয়েছে। তিনি বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপি ছাড়ার পর বলেছিলেন, তিনি প্রথম এগোরার খেলোয়াড়। চিরকাল প্রথম একাদশেই থাকতে চান। দ্বাদশ ব্যক্তিও হতে চান না, চান না রিজার্ভ বেঞ্চে বসতে।২০২১-এর ৩ অগাস্ট বিজেপি ছেড়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। তৃণমূলে যোগ দিয়ে বিধায়ক হওয়ার পর সেই ৩ অগাস্টাই তিনি শপথ নিলেন পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে। কাকতালীয়ভাবে ঠিক এক বছর পরে একইদিনে নতুন দলে এসে তিনি প্রথম এগারোর খেলোয়াড় হয়ে গেলেন। মোদীর মন্ত্রিসভার প্রাক্তন সদস্যকে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও সাদরে গ্রহণ করে দায়িত্ব দিলেন। তাঁকে গুরুত্বপূর্ণ দফতর দেওয়া হবে বলেই বিশ্বস্ত সূত্রের খবর।২০২১-এ তৃণমূল বিপুলভাবে জিতে ক্ষমতায় আসার পর বিজেপি ছেড়েছিলেন একাধিক নেতানেত্রী। অনেক বিধায়ক এসেছিলেন। এসেছিলেন অনেক নেতা-নেত্রী। তাঁদের মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য বাবুল সুপ্রিয়। কারণ বাবুল সুপ্রিয় ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী। আসানসোলের বিজেপি সাংসদ। তাঁকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবে সরিয়ে দেওয়ার পর বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে রাজনীতি ছাড়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন।কিন্তু রাজনীতি থেকে ক্ষণিকের অবসরের পরই তিনি তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। ত্যাগ করেছিলেন সাংসদ পদ। ২০২১-এর ১৮ সেপ্টেম্বর রাজ্যের শাসক দলে যোগ দিয়েই তিনি বেল দিয়েছিলেন দলবদলের কারণ। আর রাজনীতি ছাড়ার কথা বলেও তিনি তৃণমূলে কেন যোগ দিলেন, তাও ফলাও করে জানিয়ে দিয়েছিলেন। জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি প্রথম একাদশের খেলোয়াড়, রিজার্ভ বেঞ্চে বসে থাকেন না, থাকতে চান না।তৃণমূলে যোগ দেওয়া পরও কোনও পদ না মেলায় বিজেপি তাঁকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। তাঁকে যে তৃণমূল প্রথম একাদশের খেলোয়াড় ভাবছে না, তাও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিজেপির নেতারা। কিন্তু বাবুল সুপ্রিয় তাঁদের পরতে পরতে জবাব দিয়ে গিয়েছেন। ধৈর্য্য ধরেছেন প্রথম একাদশে ময়দানে নামার জন্য।বাবুল সুপ্রিয়কে বালিগঞ্জ বিধানসভার কেন্দ্রের উপনির্বাচনে প্রার্থী করার পরই বোঝা গিয়েছিল তিনি তৃণমূলের প্রথম একাদশে আসতে চলেছেন। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের ছেড়ে যাওয়া আসনে জয়ী হওয়ার পর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছিল এবার তিনি মন্ত্রী হতে চলেছেন। সেইমতো মন্ত্রী হলেন তিনি। একেবারে পূর্ণমন্ত্রী। তৃণমূল সরকার যখন ইডির হানায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছে, তখন চ্যালেঞ্জ নিলেন বাবুল।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar