Saturday, February 4, 2023
Homeখবর এখনফের সিবিআই কেষ্টকে তলব করতেই, কুণালের মন্তব‍্য এটা 'প্রতিহিংসার রাজনীতি'.

ফের সিবিআই কেষ্টকে তলব করতেই, কুণালের মন্তব‍্য এটা ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি’.

 প্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধাঃ- মঙ্গলবার ভোট পরবর্তী মামলায় বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে তলব করল সিবিআই। উল্লেখ্য, গরুপাচার মামলায় ইতিমধ্যেই অনুব্রত ওরফে কেষ্টকে লম্বা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তাকারী সংস্থা। সিবিআই সূত্রে খবর, মঙ্গলবার অনুব্রত সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সের সিজিও কমপ্লেক্সে বেলা ১ নাগাদ হাজির হতে বলা হয়েছে। যদিও এদিন শেষ অবধি সিবিআই-র ডাকে সাড়া দেবেন কিনা, সেবিষয়ে কিছু প্রতিক্রিয়া দেয়নি অনুব্রত মণ্ডল। 

উল্লেখ্য, এর আগে ভোট পরবর্তী মামলায় অনুব্রত মণ্ডলকে দুবার তলব করেছিল সিবিআই। কিন্তু শারীরিক অসুস্ততার কারণ তিনি যেত পারেননি। এবিষয়ে তৃণমূলের কুনাল ঘোষ জানিয়েছেন,’এটা আইনি প্রক্রিয়া। এনিয়ে দলের কিছু বলার নেই।  তবে ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগ তুলে বিজেপি নেতারা বহু এলাকায় প্ররোচনা দিচ্ছেন। কোনও কোনও জায়গায় আদি ও নব্য বিজেপি কর্মীদের মধ্যেও মারামারি হচ্ছে। প্রতিহিংসার রাজনীতি করে তদন্তকারী সংস্থাকে ব্যবহার করে রাগ মেটানোর চেষ্টা করছে বিজেপি।’ যদিও অপরদিকে এনিয়ে শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘তদন্তকারী এজেন্সির বিষয়, এ নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।’ছয় বারের হাজিরা এড়িয়ে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দফতরে সম্প্রতি নিজেই চিঠি দিয়ে ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিলেন বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। তড়িঘড়ি করে জবাব দেয় নিজাম প্যালেসও। গত সপ্তাহে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় নিজাম প্যালেসে অনুব্রত মণ্ডলকে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই মতোই এদিন সিবিআই দফতরে হাজির হন কেষ্ট। যদিও তাঁকে সিবিআই দফতরে আসার সময় তাঁকে, বুকে হাত দেওয়া এবং কাঁধে ভর দেওয়া অবস্থায় আসতে দেখা যায়।গরুপাচার মামলা থেকে ভোট পরবর্তী হিংসার মামলা সিবিআই একাধিকবার তলব করলেও অসুস্থ সহ বিভিন্ন যুক্তি দেখিয়ে হাজিরা এড়িয়েছেন অনুব্রত ওরফে কেষ্ট। তবে এবার শেষঅবধি বৃহস্পতিবার তিনি সিবিআই-র মুখোমুখি হন। এরপর ৪ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে সিবিআই দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ চলে। আর জিজ্ঞাসাবাদের পর বেরিয়ে আসতেই ফের সোজা এসএসকেম-র উডবার্ণে ভর্তি হন অনুব্রত ওরফে কেষ্ট। যদিও এদিন শেষ অবধি সিবিআই-র ডাকে সাড়া দেবেন কিনা, সেবিষয়ে কিছু প্রতিক্রিয়া দেয়নি অনুব্রত মণ্ডল। যদিও জিজ্ঞাসাবাদের আগে তিনি যাতে কোনওভাবেই দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন তার জন্যই তাঁর পাসপোর্ট চেয়ে পাঠানো হয়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও পাসপোর্ট নেই বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে, সিবিআই সূত্রের খবর, বারবার হাজিরা এড়ানোয় পদ্ধতি মেনেই অনুব্রতর পাসপোর্ট ও অন্যান্য নথি তলব করা হয়। অনুব্রত মণ্ডলের পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশ মন্ত্রকে খোঁজ খবর শুরু করে অফিসাররা। গরুপাচার থেকে ভোট পরবর্তী হিংসা, সব মিলিয়ে বিরাট ঝুলে অনুব্রত ভাগ্য।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar