Tuesday, January 31, 2023
Homeখবর এখনএখনই বিশ্রাম নয়’,আমি অন্য ধাতু দিয়ে তৈরি "আগামিতেও নেতৃত্ব প্রদানের বড় ইঙ্গিত...

এখনই বিশ্রাম নয়’,আমি অন্য ধাতু দিয়ে তৈরি “আগামিতেও নেতৃত্ব প্রদানের বড় ইঙ্গিত মোদীর…

 প্রতিনিধি,মুক্তিযোদ্ধাঃ

 দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তিনিই থাকতে প্রস্তুত। এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবার বিরোধীদের এক খুবই বর্ষীয়ান নেতা, যাঁকে মোদী প্রচণ্ড সম্মান করেন- তিনি একবার প্রধানমন্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন যে, ‘দু’বার দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। এরপর আর তাঁর কীই বা অর্জন করার থাকতে পারে।’ জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন যে, তবুও তাঁর বিশ্রামের সময় নেই। কারণ সরকারি প্রকল্পগুলির ১০০ শতাংশ কার্যকর না হলে বিশ্রাম নেওয়া তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়।ভারতের উৎকর্ষ সমারোহে চারটি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্পের সুবিধাভোগীরা একত্রিত হয়েছিল। মোদী সেখানেই ভার্চুয়াল বক্তৃতা দেন। বলেন: ‘একবার আমি একজন নেতার সঙ্গে দেখা করেছিলাম…তিনি একজন খুব সিনিয়র নেতা…রাজনৈতিকভাবে তিনি আমার প্রতিপক্ষ ছিলেন, কিন্তু আমি তাকে সম্মান করি। কিছু সমস্যা সমাধানের জন্য একদিন তিনি আমার সঙ্গে দেখা করতে আসেন। তখনই বলেছিলেন যে, মোদীজি, এখন আর কী করতে চান? দেশ আপনাকে দু’বার প্রধানমন্ত্রী করেছে।’এরপরই প্রধানমন্ত্রীর সংযোজন, ‘ওই সিনিয়ার নেতা মনে করেন যে দু’বার প্রধানমন্ত্রী হওয়াই সবচেয়ে বড় সাফল্য। তিনি জানেন না যে মোদী অন্য কিছুর জন্য তৈরি। গুজরাটের মাটিতে আমি বড় হয়েছি। আমি মনে করি যে, এখনই আমার বিশ্রামের সময় হয়নি। যা ঘটছে তা সবই ভালো একথা বলতে পারব না। লক্ষ্যের ১০০ শতাংশ ছোঁয়াই আমার স্বপ্ন। সরকারি ব্যবস্থাকে অভ্যাসে পরিণত করুন, নাগরিকদের মধ্যে আস্থা তৈরি করুন।’নিজের বক্তব্যে আট বছর আগেকার কথাও তুলে ধরে বদলের বিষয়টি স্পষ্ট করতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মোদী বলেছেন, ‘যখন ২০১৪ সালে প্রথমবার ক্ষমতায় আসি, সেই সময় অর্ধেক দেশ শৌচাগার, টিকাকরণ, বিদ্যুৎ, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বহু দূরে ছিল। কিন্তু এই কয়েক বছরে সকলের প্রচেষ্টায় বহু প্রকল্পই ১০০ শতাংশ কার্যকর হয়েছে।’ তার মতে, ‘এগুলি ছিল কঠিন কাজ এবং রাজনীতিবিদরা যা করতে ভয় পান।’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাফ দাবি, তিনি এখানে রাজনীতি করতে নয়, দেশের নাগরিকদের সেবা করতে এসেছেন।মোদীর কথায়, ‘দেশ শতভাগ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের অঙ্গীকার করেছে। যখন এটি ঘটে, তখন নাগরিক বিশ্বাস করতে শুরু করে যে এই অর্থের উপর আমার অধিকার রয়েছে এবং এটি কর্তব্যের বীজ বপন করে। যখন এই সম্পৃক্ততা ঘটে, তখন বৈষম্যের কোন সম্ভাবনা থাকে না, সুপারিশের প্রয়োজন হয় না। যখন এটি ঘটে, তখন তুষ্টির রাজনীতি শেষ হয়ে যায়।’কঠিন পরিস্থিতির উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর বলেন, ‘একবার আমার নিরাপত্তার হুমকির খবর এসেছিল, একবার আমার অসুস্থতার খবর এসেছিল, তখন আমি বলেছিলাম, ভাই আমার কোটি কোটি মা-বোনের আশীর্বাদ আছে এবং এই ঢাল যতক্ষণ না আমার কাছে থাকবে, কেউ কিছু করতে পারবে না।’ সরকারি দফতরে তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আট বছর কাজ করেছে বলে দাবি মোদীর। এইসময়কালে তাঁর লক্ষ্য থাকে, ‘নতুন প্রতিশ্রুতি এবং নতুন শক্তি’।মোদীর দাবি, তাঁর সরকার ৫০ কোটি লোককে স্বাস্থ্য বীমা প্রকল্পের অধীনে প্রত্যেককে পাঁচ লাখ টাকার সুরক্ষার আওতায় এনেছে, দুর্ঘটনা বীমা প্রকল্পের আওতায় কোটি কোটি টাকা এবং প্রবীণ নাগরিকদের পেনশন প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে। তাঁর বার্তা, মানুষ তাদের নিজস্ব বাড়ি, গ্যাস সংযোগ, বিদ্যুৎ সংযোগ, জল সংযোগ এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ‘গরীবরা তাদের অর্ধেক জীবন সরকারি অফিসের আশেপাশে কাটাবে, এই প্রবণতা বিজেপি সরকার পরিবর্তন করেছে।’

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar