Tuesday, January 31, 2023
Homeখবর এখনভিক্টোরিয়ায় কেন্দ্র তথা অমিত শাহের অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল ডাক পেলেও বাদ গেলেন মমতা..

ভিক্টোরিয়ায় কেন্দ্র তথা অমিত শাহের অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল ডাক পেলেও বাদ গেলেন মমতা..

 প্রতিনিধি:-

 বিধানসভা ভোটের পর বৃহস্পতিবার দুদিনের সফরে রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ। বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগণার একাধিক প্রকল্পের উদ্ধোধন করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুক্রবার উত্তরবঙ্গ থেকে ফিরে সন্ধ্যেয় ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এই অনুষ্ঠানে  রাজ্যপাল উপস্থিত থাকলেও, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়কে আমন্ত্রন জানানো হয়নি।এদিন সকালে উত্তর ২৪ পরগণার হিঙ্গলগঞ্জে বিএসএফ-র ৬ টি অত্যাধুনিক ভাসমান আউটপোস্ট উদ্ধোধন করবেন এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এর পাশাপাশি সুন্দরবন এলাকার জন্য বোট অ্যাম্বুলেন্সেরও উদ্ধোধন করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর বনগাঁর হরিদাসপুরে মৈত্রী সংগ্রহলয়ের শিলান্যাস করবেন তিনি। সন্ধ্যেয় শিলিগুড়িতে রেলওয়ে ইন্সিটিউট স্পোর্টস গ্রাউন্ডে জনসভায় অংশ নেবেন। শুক্রবার সকালে কোচবিহার জেলার তিনবিধা সফরে যাবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কলকাতায় ফিরে দুপুরে বিজেপি সাংসদ, বিধায়ক, পদাধিকারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন। এরপর সন্ধ্যেয় যোগ দেবেন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ,এই অনুষ্ঠান শেষে রাতেই দিল্লি ফিরে যাবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।এদিকে ওই অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে আমন্ত্রন জানানো হলেও, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়কে আমন্ত্রন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে বলেই খবর। নিজের শহরেই কেন্দ্রের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী আমন্ত্রিত না হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই বিতর্ক মোড় নিয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেখানে উপস্থিত থাকবেন, সেখানে মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রন জানানোই রীতি। সেখানে কেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উপেক্ষা করা হল এই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। গতবছর ইউনেস্কোর আবহমান সংষ্কৃতির তালিকায় কলকাতার দুর্গাপুজো জায়গা পেয়েছে। শুক্রবার ভিক্টোরিয়া মেমরিয়ালে তারই তথ্য এবং সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফে অনুষ্ঠান উৎযাপন করা হবে। এদিকে সেই অনুষ্ঠানেই ব্রাত্য মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়।যদিও এই বিষয় নিয়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস তেমন আমল দিতে রাজি নয়। তবে তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেছেন, ‘বিজেপি সরকারের থেকে অন্তত আর যাই হোক , সৌজন্য আশা করা যায় না।’ পাশাপাশি ফোরাম ফর দুর্গোৎসবের কর্মকর্তা শাশ্বত বসুর কথাতেও বিস্ময়ের সুর,এমন ঘটনা শাস্বত বসু হতবাগ হয়ে জানিয়েছেন, এর থেকে দুঃখজনক কিছু হয় না। যার জন্য দুর্গাপুজো স্বীকৃতি পেল, তিনিই বাদ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের ঐক্যান্তিক প্রচেষ্টা ছাড়া বাংলার দুর্গা পুজো এই উচ্চতায় পৌছত ‘, প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন তিনি। যদিও বরাবরের মতো বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, জেলায় জেলায় মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক করেন কিন্তু সেই বৈঠকে বিজেপির সাংসদ, বিধায়ক, কাউন্সিলরদের আমন্ত্রন করা হয় না।এরপরেও তৃণমূল এটা প্রশ্ন করছে মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রন জানানো হয়নি কেন, এই কথাটা তৃণমূলের মুখে সাজে না।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar