Sunday, January 29, 2023
Homeখবর এখনবাজেট অধিবেশনের সংসদে চমক দিতে পারে তৃণমূল-আনতে পারে মহিলা সংরক্ষণ বিলের প্রস্তাব..

বাজেট অধিবেশনের সংসদে চমক দিতে পারে তৃণমূল-আনতে পারে মহিলা সংরক্ষণ বিলের প্রস্তাব..

 প্রতিনিধি:-

 সংসদে বাজেট  অধিবেশন  প্রায় শেষ হওয়ার মুখে সেই পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত মহিলা সংরক্ষণ বিল  নিয়ে সরব হতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস । এব্যাপারে তারা বাজেট অধিবেশনের শেষ সপ্তাহে রাজ্যসভায় এই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব আনতে চলেছে বলেই সূত্রের খবর। বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করেছেন, এর সঙ্গে যুক্ত নেতারা।তৃণমূলের এই পদক্ষেপ একটি রাজনৈতিক পদক্ষেপ হিসেবেই দেখছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। এই মহিলা সংরক্ষণ বিলে লোকসভা এবং রাজ্য বিধানসভার এক তৃতীয়াংশ আসন মহিলাদের জন্য সংরক্ষণের কথা বলা হয়েছে। সারা দেশে তৃণমূলই একমাত্র দল যাদের মহিলা মুখ্যমন্ত্রী রয়েছে এবং দলের প্রায় ৩৪ শতাংশ সাংসদ মহিলা।রাজ্যসভায় তৃণমূলের নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনিই সোমবার রাজ্যসভায় ১৬৮ নম্বর ধারায় এই প্রস্তাব পেশ করতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। এব্যাপারে তৃণমূল নেতা সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, সমাজের উন্নয়নে মহিলারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন। সেই কারণে তৃণমূল কংগ্রেস সংসদ এবং রাজ্য বিধানসভাগুলিতে মহিলাদের ৩৩% সংরক্ষণের ব্যাপারে প্রতিশ্রুতি বদ্ধ।তৃণমূলের তরফে ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্টের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ২০২১-এ ১৫৬ টি দেশের মধ্যে ভারতের স্থান ১৪০। আগের অবস্থান থেকে ২৮ ধাপ পিছিয়ে গিয়েছে। মন্ত্রিসভাতেও মহিলাদের উপস্থিতি উল্লেখযোগ্যভাবে কমতে দেখা গিয়েছে। ২০১৯ সালে ২৩ শতাংশ থেকে ২০২১-এ তা কমে ৯.১ শতাংশ হয়েছিল। তবে তা বর্তমানে ১৪ শতাংশে দাঁড়িয়ে।সেখানে আরও বলা হয়েছে, সংসদে মহিলাদের প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রেও ভারত ক্রমশই পিছিয়ে পড়ছে। ১৯৯৮ সালে এক্ষেত্রে ভারতের স্থান ছিল ৯৫ তম। কিন্তু ২০২২ সালের মার্চ পর্যন্ত বিশ্বের ১৮৪ টি দেশের মধ্যে ভারতের স্থান ১৪৪-এ পৌঁছেছে।

বর্তমানে লোকসভায় বর্তমানে লোকসভায় এবং রাজ্যসভায় মহিলা সাংসদ রয়েছেন যথাক্রমে ১৫ শতাংশ এবং ১২ শতাংশের মতো কিন্তু বিশ্বে এর গড় ২৫.৫ শতাংশ। আর রাজ্যের বিধানসভাগুলির মহিলা বিধায়কের সংখ্যার গড় প্রায় ৪ শতাংশের মতো।উল্লেখ করা যেতে পারে ২০০৮ সালে দ্বিতীয় ইউপিএ সরকারে আমলে মহিলা সংরক্ষণ বিলটি রাজ্যসভায় পাশ হয়ে গিয়েছিল কিন্তু তা আর লোকসভায় আনা হয়নি। এব্যাপারে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী কিরেণ রিজিজু বলেছেন, এই বিল সংসদে আনার আগে সব রাজনৈতিক দলের ঐকমত্ই প্রয়োজন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Skip to toolbar